অস্থায়ী সুন্দরকে হৃদয় দেয়া চরম নির্বুদ্ধিতা :

بسم الله الرحمن الرحيم

    আসমানের মতো জমিনেও সৌন্দর্যের তারকারাজি বিস্তৃত হয়ে আছে। এ সবই অস্থায়ী ও ধ্বংসশীল। নিজ নির্বুদ্ধিতা ও বোকামী হেত ফিরে এস। এদের পিছে ঘুরো না। কেউ যদি আন্তর্জাতিক নির্বোধকে দেখতে চায় সে যেন সুন্দরী পাগলদেরকে দেখে। এটা শুধু আমার উক্তি নয়; বরং হযরত থানভী (রহ.) এরও বক্তব্য। তিনি বলেন, প্রত্যেক পাপী তো নির্বোধই। দৃষ্টির গুনাহকারী হলো নির্বোধদের সর্দার। মিলনতো নেই শুধু অন্তরকে ব্যাকুল ও ব্যতিব্যস্ত করে তোলা। অনর্থক চোখের গুনাহ করে যাওয়া।

    অপরিচিত মহিলার সাথে কথা বললে তা হবে মুখের গুনাহ। আমরা বেগানা মহিলাদের সাথে অহেতুক কথা বলে থাকি। যেমন, আপা আপনার বাসা কোথায়? গুলশান ইকবালের কত নম্বর সেক্টরে আপনি থাকেন? ইত্যাদি অহেতুক আলাপ-আলোচনা করার কী প্রয়োজন আছে? আপার সাথে কথা বলার এবং শুধু শুধু গুনাহ করার কী দরকার? যার সর্বদা এই ধ্যান থাকবে যে, আল্লাহ পাক আমার দৃষ্টিকে দেখছেন। আমি কোথায় দৃষ্টি ফেলছি এবং কীভাবে কুদৃষ্টি করছি। সে এই অহেতুক গুনাহ থেকে বেঁচে থাকবে।
میری نظرپہ ان کی نظرپاسباں رہی
افسوس اس احساس سےکیوں بےخبرتھےہم
দৃষ্টির উপর নযরদারী সর্বদাই তাঁর
আফসোস, হায়! গাফলতী ঘুম ভাঙেনি আমার।
 সর্বদা এই অনুভূতি রাখতে হবে, আল্লাহ পাক আমার সম্পর্কে অবগত আছেন। এমন যেন না হয়, তুমি সাহায্যকারী হয়ে এয়ারপোর্টে কোন বৃদ্ধার খবরই নিলে না আর কোন সুন্দরী তরুণীকে দেখে তার ব্যাগটি এগিয়ে দিতে এবং তার এমিগ্রেসন (চেকআপ) করিয়ে দিতে ব্যতিব্যস্ত হয়ে গেলে। আর এ কথা বলে বেড়ালে যে, আমি মুসাফিরদে খেদমতে নিবেদিতপ্রাণ। আরে ভাই! এতো এক পথিক মহিলা। আর তুমি এক আখেরাতের মুসাফির। তাহলে এত ব্যস্ততা কেন? তার এই সৌন্দর্য চিরস্থায়ী কিছু নয়। তা আজ আছে কাল হয়ত থাকবে না। তাহলে তুমি তার জন্য এত পাগল হলে কেন? এই অস্থায়ী সৌন্দর্যের বর্ণনা জনৈক কবির কবিতায় চমকপ্রদভাবে ফুটে উঠেছে- 
ایسےویسےکیسےکیسےہوگۓ
کیسےکیسےایسےایسےہوگۓ
বদলে গেল ছিল যত আকার আকৃতি
সৌন্দর্য-কমনীয়তা সব হয়ে গেল স্মৃতি ।
 অর্থাৎ, তার আকৃতি-গঠন, রূপ ও সৌন্দর্য সবকিছুই বদলে গেছে। এরই বর্ণনা দিয়ে অন্য আরেক কবি লিখেন- 
کمر جھک کےمثل کمانی ہوئ
کمر جھک کےمثل کمانی ہوئ
কোমর ঝুঁকে ধনুক হবে, এইকথাটি জানা
চাইবে না কেউ চোখ তুলে আর ডাকবে নানী নানা ।
 বন্ধুগণ! যার অবস্থা এমন অর্থাৎ, আজ তার সৌন্দর্য আছে তো কিছু দিন পরে থাকবে না তার জন্য পাগল হওয়ার কী আছে? তাকে চুপি চুপি দেখে গুনাহ করার অর্থ কী? তাকে নিয়ে এত জল্পনা-কল্পনা কেন? মনে রেখ! তুমি যে কাজই কর না কেন আল্লাহ তায়ালা তোমাকে দেখছেন। তিনি অন্তরের সকল ভেদ সম্পর্কে সম্যক জ্ঞাত। তিনি অন্তর্যামী। জনৈক বুযুর্গ কবি বলে-
چوریاں آنکھوں کی اورسینوں کےراز
جانتاہےسب کوتواےبےنیاز 
 অন্তরে সুপ্ত কথা অপাত্রে দৃষ্টিদান
সব কিছু জান তুমি আল্লাহ মহান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: দয়া করে কপি করা থেকে বিরত থাকুন, ধন্যবাদ।