কোথায় যাবে তোমার ইতিহাস নিয়ে?

بسم الله الرحمن الرحيم

 
কোথায় যাবে তোমার ইতিহাস নিয়ে?

    মরণশীলদের প্রতি আসক্ত হয়ে, তাদের আকার-আকৃতি চেহারা-সুরত রূপান্তরিত হওয়া, গণ্ডদেশ লেগে যাওয়া ও মুখ হতে দাঁত বেরিয়ে আসার কুৎসিত রূপ নিয়ে চিন্তা করতে হবে। আমা এই কবিতাটি পড়তে হবে, যা আমি মীর সাহেবকে লক্ষ্য করে আবৃত্তি করেছিলাম। কেবল মীর সাহেব কে লক্ষ্য করে নয় বরং আমাকে এবং সকল সালিকীনকে উদ্দেশ্য করে আবৃত্তি করেছিলাম। এই কবিতাটি অর্ধরাতের কবিতা। আমি আল্লাহর নিয়ামতের বহি:প্রকাশ করছি। অর্ধরাতের পর যখন দুনিয়ার আসমানে আল্লাহ তায়ালা অবতরণ করেন তখন কবিতাটি আমার অন্তরে দোলা দিয়েছে-

 

حسینوں کاجغرافہ میربدلا
کہاں جاؤگےاپنی تاریخ لےکر

 

 “হে মীর! সুন্দরীদের আকৃতি যে বদলে গেছে,
নিজ-ইতিহাজ নিয়ে তুমি যাবে কোথায় মিছে?” 

    এটি কান্না-কাটি, অশ্রুসজলতা ও আখতার গণনার সময় ছিল। আখতার গণনার অর্থ হলো রাতে তারা গণনা করা (হযরত বলেন) আমার নাম মনে কোন না। আখতার অর্থ হলো তারা। তাহলে তুমি একথা বলতে পারবে না যে, আপনাকে তো আমি গণনা করিনি। সব কিছু যে কী হলে। কোথায় গেল সে সকল ইতিহাস?

حسینوں کا جغرافیہ میر بدلا
کہاں جاؤگےاپنی تاریخ لےکر
یہ عالم نہ ہوگاتوپھرکیاکروگے
زحل مشتری اورمریخ لےکر
 
 শুনে রাখ মীর রূপসীর রূপ হয়ে গেছে ম্লান
নিজ ইতিহাস সঙ্গে নিয়ে কোথায় তুমি যাবে
পৃথিবী যদি পৃথিবীর মতো না থাকে বর্তমান
তারকারাজির সৌন্দর্য্য তার প্রয়োজন হারাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: দয়া করে কপি করা থেকে বিরত থাকুন, ধন্যবাদ।